x 
Empty Product

আমের আচার করেন না এমন গৃহিণী এ দেশে খুঁজে পাওয়া ভার। আমের মওসুমে তাই ঘরে ঘরে আচার বানানোর ধুম পড়ে যায়। তেমনই তিনটি রেসিপি থাকছে এবারÑ সঙ্গে অনেকটা বোনাসের মতো চিকেন-সবজি আচারের রেসিপি

 

 

 

আম পোস্তার আচার

 

 

 

উপকরণ

 

আম ৫০০ গ্রাম, পোস্তাবাটা ২ টেবিল চামচ, শুকনো মরিচ বাটা ১ চা-চামচ, সাদা সরষে বাটা ১ টেবিল চামচ, মেথিবাটা আধা চা-চামচ, সরষের তেল ২ কাপ, ভিনেগার ২ টেবিল চামচ, চিনি, লবণ পরিমাণমতো, রসুনবাটা আধা চা-চামচ, আদা বাটা ১ চা-চামচ।

 

 

 

প্রণালী

 

আম চৌকোনা করে কেটে লবণ মেখে রোদে দিন। কড়াইয়ে তেল গরম করে তাতে রসুন, আদা বাটা, মরিচ বাটা, আম ও বাকি সব দিয়ে নাড়–ন। নামানোর আগে ভিনেগার ও চিনি দিন।

 

চিকেন সবজি আচার

 

 

 

উপকরণ

 

পেঁপে ও গাজর কিউব করে কাটা ১ কাপ করে; বরবটি, বাঁধাকপি আধা কাপ করে; কাঁচামরিচ, পাঁচফোড়ন ১ টেবিল চামচ করে; সরষের তেল কোয়ার্টার কাপ, আদা, রসুন বাটা ও সাদা সরষে বাটা ২ টেবিল চামচ করে;  মুরগির মাংস কিউব করে কাটা ১ কাপ, হলুদ গুঁড়ো ও লবণ পরিমাণমতো।

 

প্রণালী

 

প্রথমে সবজি কেটে ধুয়ে সেদ্ধ করুন। এবার চুলায় তেল ও পাঁচফোড়ন দিয়ে মুরগির মাংস দিন। আদা, রসুন বাটা এবং অন্য উপকরণ তাতে দিয়ে ভালো করে রান্না করুন। সেদ্ধ হয়ে গেলে নামিয়ে নিন।

 

 

 

আমের মিষ্টি আচার

 

 

 

উপকরণ

 

কাঁচা আম ১০টি, রসুন বাটা, সরষে বাটা ২ টেবিল চামচ করে; আদা বাটা ২ চা-চামচ, হলুদ বাটা ১ চা-চামচ, মরিচ বাটা ১ টেবিল চামচ, লবণ, গুড় অথবা চিনি পরিমাণমতো, পাঁচফোড়ন আধা চা-চামচ, তেল পৌনে ১ কাপ।

 

 

 

প্রণালী

 

আম খোসা ছাড়িয়ে ফালি করে ধুয়ে পানি ঝরান। লবণ মিশিয়ে ৩-৪ ঘণ্টা রাখুন। লবণের পানি থেকে তুলে একবার ধুয়ে পানি ঝরান। কড়াইয়ে তেল, পাঁচফোড়ন দিন। সব মসলা একসঙ্গে মিশিয়ে কষান। এবার আম ও পরিমাণমতো লবণ দিন। আম নরম হলে গুড় অথবা চিনি দিন ¯^াদমতো। ঠাণ্ডা হলে বোতলে ভরুন।

 

 

 

 

 

আম মরিচের টক আচার

 

উপকরণ

 

কাঁচামরিচ আধা কেজি, কাঁচা আম ১০টি, হলুদ বাটা, আদা বাটা আধা চা-চামচ করে; সরষে, রসুন বাটা, ধনেগুঁড়ো, মরিচ বাটা ১ চা-চামচ, পাঁচফোড়ন ১ টেবিল চামচ, লবণ পরিমাণমতো, সিরকা আধা কাপ, সরষের তেল ২ কাপ।

 

 

 

প্রণালী

 

আম খোসা ছাড়িয়ে কুরান। ডুবো পানিতে ৫-৬ ঘণ্টা ভিজিয়ে রাখুন। পানি ছেঁকে দুবার ভালোমতো আম ধুয়ে নিন। পানি ভালোমতো নিংড়ান। এবার কাঁচামরিচ বোঁটা ছাড়িয়ে ভালোমতো ধুয়ে পানি ঝরান। এরপর তেলে সব মসলা দিয়ে কষান। লবণ ও আম দিয়ে নাড়–ন। কাঁচামরিচ ও সিরকা দিন। বোতলে ভরে আচারের ওপর তেল দিন।

কাঁচা আমের আচার সবারই পছন্দ। আমের আচার দেওয়ার উপযুক্ত সময় এখনই । কাঁচা আম বাজারে পাবেন আর মাত্র কিছুদিন। তাই বানিয়ে ফেলুন কাঁচা আমের কয়েকটি আচার, যা খেতে পারবেন সারাটি বছর।

১) টক-ঝাল-মিষ্টি আমের আচার

উপকরণঃ
কাঁচা আম ১ কেজি
সিরকা আধা কাপ
সরিষার তেল এক কাপ
রসুনবাটা দুই চা-চামচ
 আদাবাটা দুই চা-চামচ
হলুদ্গুড়া দুই চা-চামচ
চিনি তিন টেবিল-চামচ
লবণ পরিমাণমতো।

মসলার জন্যঃ মেথি গুঁড়া এক চা-চামচ, জিরা গুঁড়া দুই চা-চামচ, মৌরি গুঁড়া এক চা-চামচ, রাঁধুনি গুঁড়া দুই চা-চামচ,সরষেবাটা তিন টেবিল-চামচ, শুকনা মরিচ গুঁড়া দুই টেবিল-চামচ, কালো জিরা গুঁড়া এক চা-চামচ।

প্রণালিঃ খোসাসহ কাঁচা আম টুকরো করে লবণ দিয়ে মেখে একরাত রেখে দিতে হবে। পরের দিন ধুয়ে আদা, হলুদ, রসুন মাখিয়ে কিছুক্ষণ রোদে রাখুন। এরপর সসপ্যানে আধা কাপ তেল দিয়ে আমগুলো নাড়া-চাড়া করতে থাকুন, গলে গেলে নামিয়ে ফেলুন। অন্য একটি  সসপ্যানে বাকি তেল দিয়ে চিনিটা গলিয়ে ফেলুন। কম আঁচে চিনি গলে গেলে সব মসলা দিয়ে (মৌরি,মেথি গুঁড়া ছাড়া) আম কষিয়ে নিতে হবে। আম গলে গেলে মৌরি গুঁড়া, মেথি গুঁড়া দিয়ে নামিয়ে ফেলতে হবে।

২) আম-রসুনেরআচার

উপকরণঃ
খোসা ছাড়া কাঁচা আমের টুকরা দুই কাপ
সরিষার তেল এক কাপ
রসুনছেঁচা এক কাপ
মেথি এক টেবিল-চামচ
মৌরি এক টেবিল-চামচ
জিরা এক টেবিল-চামচ
কালো জিরা দুই চা-চামচ
সিরকা আধা কাপ
হলুদগুঁড়া দুই চা-চামচ
শুকনা মরিচ ১০-১২টি
চিনি দুই টেবিল-চামচ
লবণ পরিমাণমতো।

প্রণালীঃ আমের টুকরো গুলোতে লবণ মাখিয়ে একরাত রেখে দিতে হবে। পরের দিন ধুয়ে কয়েক ঘণ্টা রোদে দিতে হবে। রেসিপির সব মসলা মিহি করে বেটে নিতে হবে। এরপর চুলায় সসপ্যানে তেল দিয়ে বসাতে হবে। তেল গরম হলে রসুন দিয়ে কিছুক্ষণ নাড়িয়ে, তারপর বাটা মসলা দিয়ে নাড়তে হবে। তারপর আম দিয়ে নাড়িয়ে নিতে হবে। কিছুক্ষণ রান্না করার পর আম নরম হলে, চিনি দিয়ে নাড়িয়ে নামাতে হবে। এরপর আচার ঠাণ্ডা হলে বোতলে ভরে, বোতলের মুখ পর্যন্ত তেল দিয়ে ঢাকতে হবে। এরপর কয়েকদিন রোদে দিতে হবে।

৩) আম-পেঁয়াজের ঝুরি আচার

উপকরণঃ
কাঁচা আমের ঝুরি এক কাপ
পেঁয়াজ কুচি এক কাপ
জিরাগুঁড়া দুই চা-চামচ
কালো জিরাগুঁড়া আধা চা-চামচ
সরষেগুঁড়া এক টেবিল-চামচ
মরিচগুঁড়া দুই চা-চামচ
সরিষার তেল আধা কাপ
লবণ পরিমাণ মতো।

প্রণালীঃ  আমের ঝুরি এবং পেঁয়াজের কুচি আলাদাভাবে একদিন রোদে ভালোভাবে শুঁকিয়ে নিতে হবে। তারপরের দিন বাকি সব উপকরণগুলি দিয়ে, ভালোভাবে হাত দিয়ে মাখিয়ে বোতলে ভরে কয়েক দিন রোদে দিতে হবে।